স্তন ক্যানসারের প্রাথমিক লক্ষণ কী কী? দেরি করলেই বিপদ

গুড হেলথ ডেস্ক

আমাদের দেশে প্রতি বছর স্তন ক্যানসারে (Breast Cancer) আক্রান্তের সংখ্যাটা ক্রমাগত বেড়েই চলেছে। মূলত মহিলাদের মধ্যেই এ রোগের প্রাদুর্ভাব বেশি হলেও পুরুষরাও ঝুঁকির বাইরে নন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কিছুক্ষেত্রে জিনগত হলেও খারাপ লাইফস্টাইল এই রোগের অন্যতম ফ্যাক্টর। এ দেশে ৩০-৫০ বছর বয়সীরা এই অসুখের শিকার হন সবচেয়ে বেশি।

চিকিৎসকরা বলছেন ব্রেস্ট ক্যানসারের (Breast Cancer)  ক্ষেত্রে রোগ নির্ণয়ের চাবিটি থাকে আক্রান্তের কাছেই। তাদের মতে ‘সেলফ ডিটেকশন’র বিকল্প নেই।

Breast Cancer

রিস্ক ফ্যাক্টর কী কী? শরীরের অস্বাভাবিক ওজন, অল্প বয়সে পিরিয়ড, বেশি বয়সে মেনোপজ, নিয়মিত হরমোন থেরাপি, বেশি বয়সে প্রথম সন্তান, শিশুকে মাতৃদুগ্ধ পান না করানো, সঠিক ডায়েট না মানা, মদ্যপান, শরীরচর্চার অভাব- এই সমস্ত কারণ স্তন ক্যানসারের (Breast Cancer) সম্ভাবনা বাড়িয়ে দিতে পারে।

বয়স ৩০ পেরোলেই বছরে এক বার চেক আপ করানো জরুরি। কোনও রকম অস্বস্তি থাকুক আর নাই থাকুক, নিজের সুরক্ষার জন্যই পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া জরুরি। মাথায় রাখতে হবে, ব্রেস্টের সব লাম্প বা টিউমার ক্যানসার নাও হতে পারে। ১০-১৫ শতাংশ টিউমারেই এই ভয় থাকে, কিন্তু সেই চিকিৎসাও দ্রুত শুরু হওয়া দরকার।

প্রাথমিকভাবে কী কী লক্ষণ (Breast Cancer)  দেখে সতর্ক হবেন?

১) স্তনবৃন্তের আশপাশে ফোলাভাব বা লাম্প তৈরি হলে যদি সেগুলো টিপলে শক্ত লাগে এবং অবস্থান পরিবর্তন না করে, তাহলে ডাক্তার দেখিয়ে নিতে হবে।

Breast Cancer

২) কোনও রকম র‌্যাশ নেই স্তনে, তবু চুলকানির মতো অনুভূতি হচ্ছে, এমন কিছু ক্যানসারের লক্ষণ।

৩) স্তনের আকার ও আকৃতিগত কোনও পরিবর্তন বা স্তনের ত্বকে অস্বাভাবিক কোনও পরিবর্তন লক্ষ্য করছেন কিনা, আয়নায় ভাল করে দেখুন (কাঁধ সোজা রেখে কোমরে হাত দিয়ে দাঁড়িয়ে)।

৪) এবার হাত মাথার ওপর তুলে দেখুন একই রকম কোনও পরিবর্তন লক্ষ্য করছেন কিনা।

৫) স্তনে লাল ভাব, স্তনে হাত দিলে বা চাপ দিলে ব্যথা লাগছে, সেই সঙ্গে কাঁধ এবং ঘাড়ের ব্যথা হলে সতর্ক হতে হবে।

৬) স্তনের কোথাও চামড়া উঠছে কিনা দেখুন
৭) শুয়ে ডান হাত দিয়ে বাম দিকের স্তনে এবং বাঁ হাত দিয়ে ডান দিকের স্তনে বৃত্তাকারে হাত ঘুরিয়ে পরীক্ষা করে দেখুন ডেলার মতো কিছু অনুভব করছেন কিনা। যদি করেন, তাহলে অবিলম্বে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নিশ্চিত হয়ে নিন।

৮) স্তনে যদি  ঘর্ষণ বা ছড়ে যাওয়ার মতো অনুভূতি হয়, বিছানায় শোওয়ার সময় যদি ব্যথা লাগে, সঙ্গে সঙ্গে টেস্ট করিয়ে নিন।