Butt Acne: এই গরমে নিতম্বে ব্রণ, জ্বালাপোড়া র‍্যাশ? সারবে কীভাবে

গুড হেলথ ডেস্ক

প্রচণ্ড গরমে নাভিশ্বাস উঠছে। এখন থেকেই ত্বকে ব্রণ, ফুসকুড়ি, র‍্যাশ বের হতে শুরু করেছে। ঘামাচির চুলকানিতে জেরবার। এর মধ্যেই আবার নিতম্বে ছোট ছোট ব্রণ, ফুসকুড়ির সমস্যা হচ্ছে অনেকেরই। নিতম্বে ব্রণ (Butt Acne) বা র‍্যাশ অস্বাভাবিক ব্যাপার নয়। গরম পড়লে এদের উপদ্রব বাড়ে। সেই সঙ্গে জনসমক্ষে লজ্জা ও সঙ্কোচও বাড়ে।

Butt Acne

সারাক্ষণ সেখানে চুলকানি, ত্বক শুষ্ক হয়ে অস্বস্তি হয়। যখন তখন চুলকে নেওয়ারও জো নেই। নিতম্বে ব্রণ (Butt Acne) বা যাকে বলে ‘বাটনে’ (Buttne), সেই নিয়ে সমস্যার শেষ নেই। মন খুলে কাওকে বলবেন তারও উপায় নেই। তাই এই গরমে বাটনে নিয়ে যাঁরা জেরবার, তাঁদের জন্য রইল ঘরোয়া উপায়ে নিতম্বে ব্রণ সারানোর মোক্ষম সব টোটকা।

নিতম্বে ব্রণ কেন হয় (Butt Acne) ?

শরীরের অন্যান্য জায়গার মতো নিতম্বেও ব্রণ হওয়া অস্বাভাবিক নয়। ছোট ছোট ফুসকুড়িও হয় অনেকের। আবার অনেক সময় নিতম্বে লাল বা কালচে র‍্যাশ হতেও দেখা যায়। গরম পড়লে এদের জ্বালাযন্ত্রণা বেশি ভোগায়। দীর্ঘসময় ঘাম জমা, স্নানের সময় ঠিকমতো পরিষ্কার না করা, অপরিষ্কার অন্তর্বাস থেকে নিতম্বে ব্রণ হতে পারে। ভেজা পোশাক দীর্ঘ সময় পরে থাকলেও এই সমস্যা হতে পারে। ‘বাটনে’-র (Butt Acne) সমস্যা নতুন কিছু হয়, প্রায় প্রত্যেকেরই আছে। শুধু লজ্জার কারণে এই সমস্যার কথা চেপে যান অনেকে। যার ফলে মামুলি ব্রণ থেকে স্কিন র‍্যাশ হতে পারে। বারে বারে সেই জায়গা চুলকানোর ফলে বিপত্তি বাড়ে।

Diabetes: ডায়াবেটিস হলেই কি ভাত-রুটি বাদ?

 Butt Acne

ব্রণ সারান ঘরোয়া উপায়ে, নিতম্বের ত্বকও থাকতে সতেজ-ঝকঝকে

ডার্মাটোলজিস্টরা বলছেন, নিতম্বে ব্রণ (Butt Acne) বা ফুসকুড়ি হলে বারে বারে সেই জায়গা চুলকাবেন না। এতে ব্রণ ফেটে গিয়ে সমস্যা বাড়বে। র‍্যাশ আরও বেড়ে গিয়ে ঘা হয়ে যেতে পারে। ঘরোয়া উপায়েই বাটনে থেকে রেহাই মিলবে সহজে।

রোজ অন্তর্বাস বদলান– গরমের সময় বিশেষ করে একই অন্তর্বাস রোজ পরবেন না। পরিষ্কার অন্তর্বাস পরুন। ভেজা অন্তর্বাসও দীর্ঘ সময় পরে থাকবেন না। প্রতিদিন পারলে ডেটল দিয়ে অন্তর্বাস কাচুন। শরীরচর্চা করার পরে বা বাইরে থেকে ঘুরে এলে সঙ্গে সঙ্গে অন্তর্বাস বদলে ফেলুন। এতে ঘাম জমা জায়গায় ব্যাকটেরিয়া জমতে পারবে না।

স্নানের সময় নিতম্ব পরিষ্কার করুন— প্রতিদিন স্নানের সময় ভাল করে নিতম্ব পরিষ্কার করুন। পারলে স্নানের সময়ে বেঞ্জোয়েল পেরোক্সাইড দিয়ে নিতম্ব পরিষ্কার করুন। বেঞ্জোয়েল পেরোক্সাইড একধরনের অর্গ্যানিক অ্যাসিড যার কেরাটোলাইট ও অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল গুণ ব্রণ, র‍্যাশ সারাতে সাহায্য করে। ত্বকের রোমকূপে জমা ময়লা টেনে বের করে দেয়।

Butt Acne

অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল শাওয়ার জেল ব্যবহার করুন–শাওয়াল জেল বদলান। অ্য়ান্টিব্যাকটেরিয়াল গুণ আছে এমন শাওয়ার জেল ব্যবহার করুন।

গ্লাইকোলিক অ্যাসিড--ডার্মাটোলজিস্টরা বলছেন, ত্বকের যে কোনও রকম প্রদাহ কমায় গ্লাইকোলিক অ্যাসিড। মৃত ও শুষ্ক কোষগুলোকে বের করে দেয়। ত্বকে ময়লা জমতে দেয় না।

ক্যালামাইন লোশন-– ত্বকের ফুসকুড়ি বা র‍্যাশ কমাতে ক্যালামাইন জাতীয় লোশন খুব উপকারি। এর মধ্য়ে জিঙ্ক অক্সাইড থাকে যা ত্বকের তৈলাক্তভাব কমায়, মৃত কোষগুলোকে বের করে দেয়।

ভেজা পোশাক পরবেন না–ঘামে ভেজা পোশাক দীর্ঘ সময় পরে থাকবেন না। প্রয়োজন হলে বারে বারেই অন্তর্বাস বদলে নিন। পরিষ্কার জামাকাপড় পরুন।

সঠিক অন্তর্বাস বাছুন–সঠিক অন্তর্বাস বেছে নিন। স্কিন টাইট অন্তর্বাস একদম পরবেন না।

ঘরোয়া কিছু টোটকা–ব্রণ-র জায়গায় ভাল করে বরফ ঘষলেও আরাম পাবেন, চুলকানি অনেক কমবে। দই-হলুদের মিশ্রণ, চন্দন, লেবুর রস লাগাতে পারেন। নারকেল তেলও উপকারি।