Parasitism: কাঁচা মাংস থেকে হচ্ছে পরজীবীর সংক্রমণ, বিরল চোখের রোগে আক্রান্ত বহু

গুড হেলথ ডেস্ক

কাঁচা মাংস থেকে ছড়াচ্ছে একধরনের প্য়ারাসাইট (Parasitism)। তার থেকে বিরল চোখের রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকে। অস্ট্রেলিয়ায় এই পরজীবীর সংক্রমণের খবর মিলেছে। ১৫০ জন চোখের অসুখে আক্রান্ত। তবে বিশ্বের অনেক দেশেই এই পরজীবী সংক্রমণের কথা শোনা যায়। সংক্রমণ ছড়াতে পারে পশুর পচাগলা মৃতদেহ, পোষ্যের থেকেও।

এই পরজীবীর নাম টোক্সোপ্লাজমা গন্ডি (Toxoplasma gondii)। ফ্লিন্ডারস ইউনিভার্সিটির আই অ্য়ান্ড ভিসন হেলথ বিভাগের অধ্যাপক জাস্টিন স্মিথ বলছেন, বিড়ালের থেকে এই পরজীবী ছড়ায়। তাছাড়া কাঁচা মাংস ভাল করে না ধুলে তার থেকেও সংক্রমণ হতে পারে। টোক্সোপ্লাজমা প্যারাসাইট মানুষের চোখকে আগে টার্গেট করে। দীর্ঘদিন ধরে এর সংক্রমণ হলে গ্লুকোমার মতো জটিল চোখের রোগ হতে পারে। দৃষ্টিশক্তি ঝাপসা হতে পারে, অন্ধত্বও হতে পারে।

Toxoplasma gondii

টোক্সোপ্লাজমা প্যারাসাইটের সংক্রমণ হলে যে রোগ হয় তার নাম টোক্সোপ্লাজমিক রেটিনোকরোইডিটিস  ( toxoplasmic retinochoroiditis) । রেটিনার এক তৃতীয়াংশ নষ্ট হয়ে যেতে পারে সংক্রমণে। ফলে ঝাপসা হতে শুরু করে দৃষ্টি। অধ্যাপক বলছেন, বিশ্বের ৩০ থেকে ৫০ শতাংশ মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হন। পোষ্য়ের থেকেও রোগ ছড়াতে পারে।

গ্লুকোমার কারণ হতে পারে এই প্যারাসাইট

প্যারাসাইটের সংক্রমণ হলে চোখের অপটিক নার্ভ ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং তার সঙ্গে সঙ্গে চোখের দৃষ্টি কমে যেতে থাকে। চোখের নার্ভ নষ্ট হওয়ার ফলেই দৃষ্টি কমে যেতে থাকে এবং ধীরে ধীরে অন্ধ হয়ে যেতে পারে রোগী।

Ocular Toxoplasmosis

সাধারণভাবে গ্লুকোমা রোগীর কোনও বিশেষ লক্ষণ দেখা যায় না। বিশেষ ক্ষেত্রে দৃষ্টি কমে যায় বা ঝাপসা হয়ে আসে, চোখে অনেক সময় রামধনু রং দেখা যায় ও বিশেষ এক ধরনের গ্লুকোমা রোগে চোখে অসম্ভব ব্যথা হয়ে লাল হয়ে যায় এবং দৃষ্টি প্রায় ঝাপসা হয়ে ওঠে। যখন রোগী টের পান, তখন ক্ষতি অনেকখানি হয়ে গিয়েছে। দৃষ্টিশক্তি কমে যায়, রোগী চোখে ঝাপসা দেখেন, তখন বুঝতে হবে কেন্দ্রীয় দৃষ্টিশক্তিরও ক্ষতি হতে শুরু করেছে। বিশেষ কোনও গ্লকোমার ক্ষেত্রে চোখের দৃষ্টি খুব ঝাপসা হয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে চোখে ব্যথা করা বা লাল হয়ে যাওয়ার মতো লক্ষণ দেখা যায়।