টিকার সেকেন্ড ডোজ নেওয়ার ৬ মাসের মধ্যেই বুস্টার নিতে পারবেন, সময় কমাল কেন্দ্র

গুড হেলথ ডেস্ক

কোভিড টিকার তৃতীয় ডোজ তথা প্রিকশনারি ডোজ (Covid Booster Dose) নেওয়ার সময়সীমা কমাল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। এতদিন বলা হয়েছিল, কোভিড ভ্যাকসিনের সেকেন্ড ডোজ নেওয়ার ৯ মাস পরে তৃতীয় ডোজ বা বুস্টার নেওয়া যাবে। কিন্তু এখন করোনা আবার যেভাবে বাড়ছে তাতে বুস্টার নেওয়ার সময় আরও কমিয়ে দওয়া হল।

কারা নিতে পারবেন প্রিকশনারি ডোজ? প্রিকশনারি ডোজ (Covid Booster Dose) শুরুতে বয়স্কদের জন্য ছিল। তাছাড়া প্রথম সারির কোভিড যোদ্ধা ও প্রবীণদের জন্যই এই প্রিকশনারি ডোজ ছিল। এখন ১৮ বছরের ঊর্ধ্বেই নেওয়া যাবে বুস্টার ডোজ। করোনা রোগীদের সংস্পর্শে থাকতে হয় যাঁদের বা পেশাগত কারণে জনবহুল জায়গায় থাকতে হয়, প্রবীণ যাঁদের কোমর্বিডিটি আছে ও হাই-রিস্ক গ্রুপে আছেন, তাঁদের বুস্টার ডোজ নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন স্বাস্থ্য আধিকারিকরা। 

বরিশাল থেকে কলকাতা, ৫০ বছরের জার্নি, বাংলা সহ দেশের ঘরে ঘরে ওষুধ পৌঁছে দিচ্ছে অরিও ফার্মা

COVID booster Dose

সেকেন্ড ডোজ নেওয়ার কতদিন পরে বুস্টার নেবেন? ৯ মাস বা ৩৯ সপ্তাহের ব্যবধানে বুস্টার (Covid Booster Dose) নেওয়ার কথা বলা হয়েছিল। এখন সময় কমিয়ে ৬ মাস বা ২৬ সপ্তাহ করা হয়েছে। ন্যাশনাল টেকনিক্যাল অ্যাডভাইজরি গ্রুপ অব ইমিউনাইজেশনের (NTAGI) তরফে এই ঘোষণা করা হয়েছে।

কোমর্বিডিটির সার্টিফিকেট লাগবে না? প্রিকশনারি ডোজ (Covid Booster Dose) নিতে হলে বয়স্কদের মেডিক্যাল সার্টিফিকেট জমা দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল গাইডলাইনে। কী ধরনের রোগ রয়েছে বা রোগের চিকিৎসা চলছে তা দেখেই তৃতীয় ডোজ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সেক্ষেত্রে রোগের তালিকাও দিয়েছিল স্বাস্থ্যমন্ত্রক। হার্ট, কিডনি, ফুসফুসের রোগ, ক্যানসারের মতো মারণ রোগও ছিল তালিকায়। তবে এখন নয়া নির্দেশিকায় বলা হচ্ছে, ষাটের বেশি বয়স্করা দুটি ডোজ নেওয়া হয়ে গেলে তৃতীয় ডোজ পাবেন। সেক্ষেত্রে মেডিক্যাল সার্টিফিকেট দেখানোর দরকার নেই। তবে চাইলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া যেতে পারে।