অল্পেই রেগে যান? খুব মেজাজি, বদরাগী? জেনে নিন মাথা ঠান্ডা রাখার উপায়

গুড হেলথ ডেস্ক

রেগে আগুন, তেলে বেগুন… এমন অবস্থা হয় কি আপনার? রেগে গেলেই (Anger Management) একেবারে দুর্বাশা মুনি? মেজাজ গরম মানেই আর কাণ্ডজ্ঞান থাকে না? যাকে তাকে যা খুশি বলে দেন, যা মনে হয় করে ফেলেন? বোধবুদ্ধি একেবারে লোপ পেয়ে যায়?

রাগ (Anger Management) খুব খারাপ জিনিস। সাময়িকভাবে উত্তেজনা বাড়িয়ে দেয়, রক্তচাপও বাড়ে। ধকল পড়ে স্নায়ুর ওপরে। এর প্রভাব যতটা মনে হয়, ততটাই শরীরে। মনোবিদেরা তাই বলেন, রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে। অ্য়াঙ্গার ম্য়ানেজমেন্ট (Anger management) নিয়ে এখন অনেক জায়গায় কাউন্সেলিং হচ্ছে। কীভাবে রাগকে বশে রাখা যায় সে নিয়ে পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা।Anger management

প্রচণ্ড রাগ (Anger Management)  হলে কীভাবে মাথা ঠান্ডা রাখবেন তার উপায় বের করতে হবে আপনাকেই। সকলের মনের অবস্থা সমান থাকে না। তাই নিজের ব্যবহারে কীভাবে বদল আনবেন তার চেষ্টা শুরু করতে হবে এখন থেকেই। কিছু সহজ টোটকা আছে যাতে মাথা ঠান্ডা রেখে পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে পারবেন।

রাগ হয় কথায় কথায়? মেজাজ হারিয়ে চেঁচামেচি করেন? ক্ষতি হচ্ছে হার্টের

Anger Management

রাগ কমানোর সহজ টোটকা

১) রাগ হচ্ছে বুঝলে চুপ করে যান। অহেতুক কথা বাড়াবেন না, এতে সমস্যা বাড়বে।
২) সে জায়গা থেকে সরে হেঁটে আসুন কিছুক্ষণ, মাথায় জল ঢালুন, ঘরের কাজ করুন, কারও সঙ্গে কথা বলে মাথা ঠান্ডা করুন।
৩) মাথা গরম হচ্ছে (Anger Management)  বুঝলেই কানে হেডফোন গুঁজে পছন্দের গান শুনুন। এতে মাথা ঠান্ডা হবে অনেকটাই।

৪) হাতের কাছে চকলেট অথবা আপনার খুব প্রিয় কোন খাবার রাখুন। মাথা গরম হয়ে গেলেই মুখে পুরে দিন এগুলো হল মুড বুস্টার।

যারা কম ঘুমোয় তারা বেশি খিটখিটে, স্বার্থপর হয়! অনিদ্রায় বাড়ে অবসাদ 

Anger Management

৫)নেতিবাচক চিন্তা মনে আসতে দেবেন না।

৬) অন্যের নিন্দা বা সমালোচনা না করে নিজের পছন্দ-অপছন্দ পরিস্কার করে জানান। চেঁচামেচি না করে শান্তভাবে আপনার চাহিদাটা জানান।

৭) ডিপ বেলি ব্রিদিং, যোগাসন, মেডিটেশনে শরীর–মন ঠান্ডা থাকে। চট করে উত্তেজনা হয় না।

৮) যদি সাজগোজ পছন্দ হয়, তাহলে পছন্দের জামাকাপড় পরুন। এতে মুড ভাল হয়ে যাবে।

৯) নিজের পছন্দের কাজ করুন, ছবি আকুঁন, ছবি তুলতে ভাল লাগলে তাই করুন। মন ভাল হয়ে যাবে।

১০) চেঁচামেচি না করে, কোনও ভুলভাল কাজ না করে বরং ব্যস্ত রাখুন নিজেকে। অফিসের কাজ করুন বা সিনেমা দেখুন, অথবা বন্ধুদের সঙ্গে গল্প করুন। খুব দ্রুত মাথা ঠান্ডা হয়ে যাবে।