পার্লার নয়, ত্বকের গুরুত্বপূর্ণ সমস্যায় ভরসা প্রযুক্তিই, বলছেন চিকিৎসক

তিয়াষ মুখোপাধ্যায়

জন্মগত হোক বা পরবর্তী কোনও কারণে হোক, শরীরের কোনওখানে দাগ থাকলে, তা নিয়ে অনেকেই বড় ব্যতিব্যস্ত হয়ে ওঠেন। বিশেষ করে মুখে যদি এমনটা হয়, তবে তা বড় বিড়ম্বনার। শুধু দাগ নয়, অনেক সময় অনেক ক্ষতও ছাপ ফেলে যায় ত্বকে। আবার এসব যদি নাও হয়, তবু ত্বকের নানা খুঁত সারিয়ে ফেলে ঝকঝকে হয়ে উঠতে চান অনেকেই। তাঁদের সকলের জন্য আজ উত্তর রয়েছে চিকিৎসাবিজ্ঞানের কাছে। কসমেটিক সার্জারি। ঠিক কী কী বদল সম্ভব, এই নিয়েই কথা বললেন, অ্যাপোলো মাল্টিস্পেশ্যালিটি হাসপাতালের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর এবং কনসালট্যান্ট ডার্মাটোলজিস্ট, ডক্টর সুরজিৎ গরাই।

ত্বকের যত্ন মানে এখন শুধু পার্লার নয়, প্রযুক্তিও

ত্বকের বুড়িয়ে যাওয়া আটকে দেওয়া যায় কসমেটিক ডার্মাটোলজির মাধ্যমে। শুধু তাই নয়, যিনি যেমনটা পরিবর্তন চান নিজের ত্বকে, তেমনটাই সম্ভব। তা চামড়া কুঁচকে যাওয়া হোক বা টাক পড়ে যাওয়া– এই সমস্ত সমস্যারই উত্তর আছে ত্বক বিশেষজ্ঞের কাছে।

Dr. Rajesh Kataria (The Skin Clinic) - Dermatologists - Book Appointment Online - Dermatologists in Sapna Sangeeta Road, Indore - JustDial

পার্লারে গিয়ে ফেসিয়াল করানো খুবই সাধারণ ও পরিচিত একটা ব্যাপার। কিন্তু ত্বক বিশেষজ্ঞর কাছে গিয়ে এই ফেসিয়াল যন্ত্র ও প্রযুক্তির মাধ্যমে করালে তা অনেক বেশি কার্যকর ও নিরাপদ। ফোটো ফেসিয়ালের মাধ্যমে বিজ্ঞানসম্মত ভাবে ত্বকের ওপরের স্তরটা সরিয়ে ফেলা যায়। অনেক সময়ে ক্রিম দিয়ে রগড়াতে গিয়ে ত্বকের ক্ষতি হয়। সে সুযোগ নেই ডার্মাটোলজিস্টের কাছে। বরং প্রয়োজনীয় কেমিক্যাল পিলের নিয়ন্ত্রিত ব্যবহার অনেক বেশি ঝকঝকে করে ত্বককে।

লেসার থেরাপি যুগান্ত এনেছে ত্বকের চিকিৎসায়

নির্দিষ্ট আলোকরশ্মি প্রয়োগ করে কার্যত ম্যাজিক ঘটানো যায় ত্বকের ওপর। যে কোনও চোট, পোড়ার ক্ষতকে পুরোপুরি সারিয়ে দিতে পারে লেসার। ত্বকের ওপরের নষ্ট হয়ে যাওয়া স্তরটি পুরোপুরি সরিয়ে নতুন করে সজীব কোষের জন্ম নেওয়ার পদ্ধতিও শুরু করাতে পারে লেসার।

An Overview about Laser treatments | Gracia Cutis

সেই সঙ্গে লেসার যুগান্ত এনেছে ত্বকের অবাঞ্ছিত লোম তোলার ব্যাপারে। ওয়্যাক্সিং করালে লোমকূপের মুখে একটা আঘাত পড়ে, আবার নতুন করে লোমও গজায়। কিন্তু লেসারথেরাপির মাধ্যমে হেয়ারের রুটটাকেই শুকিয়ে দেওয়া যায়। ফলে আর লোম বেরোয় না। শুধু মুখ নয়, শরীরের যে কোনও অঙ্গেই হেয়ার রিমুভ করা যায় লেসার থেরাপির মাধ্যমে। কোনও ব্যথা, যন্ত্রণা, পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই এটা এখন সম্ভব।

ত্বকের দাগ বা পিগমেন্টেশন মুছে ফেলার ক্ষেত্রেও লেসার থেরাপি ভীষণ কার্যকর। সেই সঙ্গে ব্রণর দাগ, জরুল– এসব কিছুই মুছে ফেলা যায় সহজেই। কয়েক বছর আগেও এত আধুনিক যন্ত্র ছিল না কলকাতায়। জন্মদাগ মোছার কথা ভাবাও যেত না। এখন আর অসম্ভব বলে কিছুই নেই। ট্যাটু করালেও তা মুছে ফেলা সম্ভব।

Laser tattoo removal kolkata | tattoo removal clinic in kolkata - Cosmo Arts Clinic

স্ট্রেচমার্কের সমাধান আছে কসমেটিক ডার্মাটোলজির হাতে

স্ট্রেচমার্কের অনেক কারণ আছে। কারও ওজন কমানোর পরে স্ট্রেচমার্ক দেখা যায়। কেউ বা বডিবিল্ডিং করলে এই সমস্যায় পড়েন। প্রেগন্যান্সির স্ট্রেচমার্ক তো খুবই সাধারণ ব্যাপার। এসব স্ট্রেচমার্ক নির্মূল করার কথা আগে ভাবাও যেত না। বড়জোর কিছু মালিশ এবং কিছু ক্রিমের ওপর ভরসা করতে হতো। কিন্তু এখন প্রযুক্তির মাধ্যমে এই দাগ মোছা কোনও ব্যাপারই নয় বলতে গেলে।

Stretch Marks Removal – Simply Better Skin

দুর্ঘটনার ক্ষতও সারাবে ডার্মাটোলজি

কারও হয়তো দুর্ঘটনার কারণে ক্ষত হল শরীরে। এ ক্ষেত্রে দুটো সমস্যা হয়। এক তো সেই জায়গায় ওপর থেকে ক্ষত তৈরি হলই, সেই সঙ্গে, সেই জায়গাটার মুভমেন্ট থমকে যায়। সেখানে নতুন চামড়া গজায় যখন, তা হয়তো কুঁচকে যায়। কোনও অপারেশনের পরে সেলাইয়ের জায়গাতেও এমন কিছু সমস্যা হয়। কিছু বিশেষ লেসার রয়েছে, যা প্রয়োগ করে সেটাও সারানো যায়। ক্ষত তৈরি হওয়ার ১৫-২০ দিনের মধ্যে যদি চিকিৎসা পদ্ধতি শুরু করা যায়, তাহলে দারুণ ফল পাওয়া যায়।

কোনও ছোট বাচ্চার যদি কোনও দুর্ঘটনা হয়, বা হয়তো গায়ে গরম জল পড়ে ফোস্কা পড়ে গেল, যদি এই কারণে আহত অঙ্গের নড়াচড়ায় সমস্যা হয়, তাহলেও কসমেটিক ডার্মাটোলজির সিটিং নিলে সমস্যার সমাধান সম্ভব। বড় হয়ে সেই ছাপ আর থাকবে না তার শরীরে।

Kiwi doctor heals the blemishes of nature | Stuff.co.nz

বাইরে থেকে মেকআপ ছাড়াও চমকাতে পারে ত্বক

কেমিক্যাল পিল ব্যবহার করে বাড়িয়ে তোলা যায় জেল্লা। এছাড়াও বোটক্স থেরাপি করে ঢেকে দেওয়া যায় ত্বকের কুঁচকোনো ভাব। স্কিন ঝুলে পড়লে তা টানটান করার পদ্ধতিও আছে চিকিৎসা বিজ্ঞানের হাতে। তবে এগুলো কোনওটাই পাকাপাকি সমাধান নয়। এই থেরাপিগুলো নিয়মিত চর্চার বিষয়। তবে দক্ষ চিকিৎসকের হাত ধরে এই থেরাপি নেওয়া উচিত। চারদিকে বহু পার্লার এইসব থেরাপি প্রয়োগ করলেও, সেগুলি নিরাপদ নয়।