পুড়ে গিয়ে জ্বালা? গরম ছ্যাঁকা খেয়ে ফোস্কা? ঘরোয়া উপায়েই আরাম পাবেন

গুড হেলথ ডেস্ক

রান্না করতে করতে মাছ ভাজার তেল ছিটে এসে হাতের বড়সড় লাল ফোস্কা (Burn Blister) পড়ে যায় হামেশাই। গরম চা যখন তখন গায়ে পড়েও পেল্লায় একটা ফোস্কা গজায়। ছ্যাঁকা খেয়ে জ্বালাপোড়া তো আছেই। পুড়ে গিয়ে জ্বালা বা ফোস্কা পরলে গাদা গাদা অ্যান্টিবায়োটিক খেয়ে লাভ নেই। বরং ওষুধের সাইড এফেক্টস অন্য সমস্যা তৈরি করতে পারে। তার থেকে বরং ঘরোয়া উপায়েই জ্বালাপোড়া ব্যথা, ফোস্কা (Burn Blister) সারান। এতে আরামও হবে বেশি।

অনেক সময়েই গরম তেল বা জল পড়ে হাতে বা গায়ে গভীর ক্ষত (Burn Blister) তৈরি হতে পারে। সেখানে জ্বালাযন্ত্রণা বেশি। গরম চা বা খাবার পড়ে অথবা বেখেয়ালে গরম হাঁড়ি-কড়া ধরে ফেলে হাতে ফোস্কা তো পড়েই। জেনে নিন জ্বালা কমানোর কিছু উপায়।

 burns and blisters

ফোস্কা, পোড়ার জ্বালা সারবে ঘরোয়া উপায়েই

১) জ্বালাপোড়া সারাতে অ্যালোভেরা জেল খুব উপকারি। যে অংশে ছ্যাঁকা খেয়েছেন, সেখানে মলমের মতো করে কিছু ক্ষণ মালিশ করুন। জ্বালা ভাব থেকে রেহাই পাবেন (Burn Blister)। সেখানে ঠান্ডা অনুভূতি হবে, ব্যথা কমবে। অ্যালোভেরা জেলে পোড়ার দাগও মিলিয়ে যায় তাড়াতাড়ি। বাড়িতে অ্যালোভেরা গাছ থাকলে পাতা থেকে জেল বের করে নিন। না হলে অ্যালোভেরা জেল কিনে বাড়িতে রেখে দিতে পারে। খুব ভাল অ্যান্টিসেপটিক।

২) দই যে কোনও জ্বালাপোড়া সারাতে খুব উপকারি। পুড়ে যাওয়া জায়গায় অন্তত ৩০ মিনিট দই লাগিয়ে রাখুন। অনেক আরাম পাবেন।

Burns Part

৩) অনেকেই জানেন না ফোস্কা (Burn Blister) বা পোড়ার জ্বালা কমাতে চায়ের লিকার খুব উপকারি। ৩-৪টি টি-ব্যাগ এক কাপ ঠান্ডা জলের মধ্যে ডুবিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর সেই লিকার চা একটি তুলোর সাহায্যে ত্বকের পোড়া অংশে অল্প অল্প করে লাগাতে থাকুন। জ্বালাভাব অনেকটাই কমবে। চায়ের লিকারের অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুণ আছে, কাজেই সংক্রমণের ঝুঁকিও থাকবে না।

৪) মধুও খুব ভাল অ্যান্টিসেপটিক। পোড়া জায়গায় তুলোকরে মধু লাগিয়ে রাখুন। দ্রুত ক্ষত সারবে।

৫) ভিনিগারও পোড়ার ক্ষত সারাতে খুব কাজে দেয়। ভিনিগার জলে গুলে পাতলা করে নিন। সেটা তুলোয় চেপে আস্তে আস্তে ক্ষতের জায়গায় লাগান। ব্যথা কমে যাবে খুব তাড়াতাড়ি।

blisters

৬) কলার খোসাও জ্বালাপোড়া ব্যথা কমাতে উপকারি। পোড়া গায়গায় কলার খোসা কিছুক্ষণ চেপে রাখতে পারেন, উপকার পাবেন।

৭) অলিভ অয়েল খুব ভাল অ্যান্টিসেপটিক। প্রদাহ কমাতে খুবই কার্যকরী।