জ্বর, সর্দি-কাশিতে মুখে অরুচি? এই সময় কেমন ডায়েট দরকার

গুড হেলথ ডেস্ক

আবহাওয়া বদলের এমন সময়ে ঘরে ঘরে জ্বর, সর্দি-কাশি। তাছাড়া ডেঙ্গি-ম্য়ালেরিয়াও বেড়েছে। ভাইরাল জ্বরে নাস্তানাবুদ হতে হচ্ছে। চার-পাঁচ দিন পরে জ্বর কমলেও শরীরের দুর্বলতা কমছে না। সবসময় ক্লান্তিভাব, মুখে অরুচি, খিদে কম, খাওয়ার ইচ্ছা চলে যাচ্ছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই সময় মুখে স্বাদ ঠিকমতো নেই অনেকেরই। তাই এই সময়েই বেশি করে ঝাল বা মুচমুচে কিছু খেতে ইচ্ছে করে। আর এইসব খেলে শরীরের বারোটা বাজতে বাধ্য। তাই এমন খাবার ডায়েটে রাখতে হবে যাতে মুখের রুচিও ফেরে এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ে।

 Fever

অরুচি হলে ডায়েটে কী কী রাখবেন?

জ্বরের সময় চিকেন স্যুপ খাওয়ার পরামর্শ ডাক্তাররাও দিয়ে থাকেন। গরমাগরম স্যুপ মুখের স্বাদ ফিরিয়ে আনে। পাশাপাশি শরীরে প্রোটিনের ঘাটতিও মেটায়। নিয়ম করে চিকেন স্যুপ বাড়িতে বানিয়ে খেলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়বে।

diet

সুজির উপমা খুব উপকারি। সহজেই হজম হয়। এতে রয়েছে কার্বোহাইড্রেট, যা আমাদের শরীরে শক্তি জোগায়। আপনি চাইলে এতে সবজি যোগ করে খাবারটিকে আরও পুষ্টিকর করে তুলতে পারেন।

ঠান্ডা লাগলে এবং জ্বর হলে, শরীরকে হাইড্রেটেড রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বিভিন্ন ধরনের ভেষজ চা শরীরকে চাঙ্গা করতে সহায়তা করে। গলা খুসখুস ও গলা ব্যথা কমাতেও সাহায্য করে। আপনি গরম জলে আদা ফুটিয়ে তাতে মধু মিশিয়ে খেতে পারেন, খুব উপকার হবে।

ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের কারণে গলা ব্যথা হয়। মধুতে অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল উপাদান আছে যা সংক্রমণ সারাতে পারে।

ডেঙ্গু ভাইরাসের সংক্রমণ হলে রোগীর প্লেটলেট কাউন্ট কমে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই ডেঙ্গি রোগীর ডায়েট নির্ধারণের সময় ডায়েটিশিয়ানরা একটু বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করেন। কারণ রোগীর মাড়ি থেকে বা অভ্যন্তরীণ অঙ্গ থেকেও রক্তপাত হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়। সেজন্য রোগীকে গলা বা নরম খাবার খেতেই বলা হয়। এই সময় বেশি করে সবুজ শাকসবজি এবং বাদাম খেলে ভাল হবে।

জ্বরের রোগীর রোগপ্রতিরোধক ক্ষমতা বাড়াতে মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টস অত্যন্ত জরুরি একটি উপাদান। ভিটামিন ও খনিজ হল এই ধরনের মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টস। মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টস-এর মধ্যে সবচাইতে বেশি জরুরি হল ভিটামিন সি। এই ভিটামিন ইমিউনিটি বাড়াতে সাহায্য করে। ভিটামিন সি বেশি পরিমাণে থাকে সিট্রাস জাতীয় ফলে যেমন–লেবুর রস, কমলালেবু, মুসম্বি, পেয়ারা। এইসব ফল বেশি করে খাওয়া দরকার।

ভিটামিন বি কমপ্লেক্স, ভিটামিন ডি -এরও বিশেষ ভূমিকা থাকে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে। মাছ, মাংস, ডিম, দুধ, সবুজ শাকসব্জিতে ভিটামিন বি কমপ্লেক্স থাকে। ভিটামিন ডি পাওয়া যায় ডিম ও দুধে।