অবসাদ-স্ট্রেস বাড়ছে? ঘরে-বাইরে টেনশন, ডিটক্স করুন শরীর-মন

গুড হেলথ ডেস্ক

করোনা মহামারীর এই দু’বছরে মানসিক স্বাস্থ্যের (Mental Health) একদম দফারফা হয়ে গেছে। খালি মনে হয় মন ভাল নেই। সেই সঙ্গেই একরাশ স্ট্রেস, অবসাদ (Mental Detox)। একাকীত্বেও ভুগছেন অনেকে। ঘন ঘন মুড বদলে যাচ্ছে। বর্তমানে যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে মানুষের ব্যস্ততা বেড়েছে বহুগুণে। স্ট্রেস, মানসিক চাপ নিত্যসঙ্গী। এগুলোর সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে পারলে খুবই ভাল, কিন্তু স্ট্রেস ম্যানেজমেন্টে যদি আপনি পারদর্শী না হন, তাহলে নিঃসন্দেহে মাথাচাড়া দিতে পারে অবসাদ (Mental Stress) ।

মনের ব্যধি হল স্ট্রেস। একে দূরে রাখতে পারলেই মন ভাল থাকবে। তার জন্য শরীর ও মনকে ডিটক্স করতে হবে। মাথা ধরা, তিরিক্ষে মেজাজ, প্রচণ্ড ক্লান্তি অথচ শুলেও আসছে না ঘুম। শরীরের এমন বেহাল দশার সমাধান করতে পারে ডিটক্সের (Mental Detox) নানা উপায়।

 Poor Mental Health

১) জল শরীরকে ভিতর থেকে ধুয়ে সাফ করে দেয়, সমস্ত টক্সিন শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। তা ছাড়া যথেষ্ট জল খেলে তার ছাপ ত্বকেও পড়ে, ত্বক টানটান সতেজ থাকে। রোজ পর্যাপ্ত জল খাওয়া জরুরি।

২) পেশাগত কাজ ছাড়াও নানারকম সৃজনশীল কাজে নিজেকে ব্যস্ত রাখুন। ভাল বই পড়ুন, গান শুনুন, সিনেমা দেখুন, ছবি আঁকুন। মনটাকে ডানা মেলতে দিন নিজের মতো (Mental Detox)। দেখবেন অনেক হালকা লাগছে।

৩) শরীর ডিটক্স করলে তার ছাপও পড়বে মনে ও চেহারায়। তাই যকৃৎকে যথাসম্ভব সুস্থ রাখুন। নজর দিন যথার্থ পানাহারে। হজম ঠিক হচ্ছে কি না খেয়াল করুন। এক গ্লাস সামান্য গরম জলে মধু ও লেবুর রস দিয়ে দিন শুরু করুন। দেড়-দু’ঘণ্টা অন্তরই জল বা টাটকা ফলের রস খান। দিনে চার লিটারের কাছাকাছি জল খেতে পারলে, তোফা থাকবে শরীর ও মন।

 Mental Health Awareness

৪) বেশি  করে খান রসালো ফল। সবেদা, আম, তরমুজ, খরমুজ, জামরুল, আঙুর–যখন যেটা পাচ্ছেন। লাল টুকটুকে ক্র্যানবেরির সঙ্গে পাকা কমলালেবুর রস মিশিয়ে খেতে যেমন উপাদেয়, তেমনই তা শরীরকেও ডিটক্স করে।

৫) রাসায়নিক ভরা প্রসাধনী আর সুগন্ধি থেকে দূরে থাকুন। তেমনই ঘরবাড়ি পরিষ্কারের কেমিক্যালও যতটা পারবেন এড়িয়ে চলুন।

৬) দিনে ২০ থেকে ৩০ মিনিট বরাদ্দ রাখুন শারীরচর্চার জন্য। এতে পেশি, হাড়, কোষ খুব পোক্ত থাকবে। রক্ত চলাচল যত হবে, ততই মজবুত হবে রোগ প্রতিরোধ শক্তি। শরীর ও মনের সব অসুখ দূরে পালিয়ে যাবে।