দুধের জিনিস খেলেই অ্যাসিডিটি হয়? কী করে বুঝবেন আপনি ‘ল্যাকটোজ ইনটলারেন্ট’

গুড হেলথ ডেস্ক

জন্ম থেকে যে দুধ ছাড়া আমাদের চলে না, বড় হলে কারও কারও সেই দুধের প্রতিই তীব্র অনীহা জন্মায়। এই বিতৃষ্ণা শুধু ভাল লাগে না বলে নয়, অনেকেরই পাকস্থলী দুধটাকে ঠিকমতো হজম করতে পারে না। ফলে নানারকম শারীরিক অসুস্থতা দেখা দেয় (Lactose intolerance)। শুধু দুধ নয়, যে কোনও দুগ্ধজাত পদার্থ যেমন, দুধ, দই, পনিরেই এই সমস্যা হতে পারে। এই সমস্যাকে চিকিৎসা পরিভাষায় বলে ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স।

 Lactose Intolerance

ল্যাকটোজ ইনটলারেন্সের (Lactose intolerance) কারণ কী?
আমাদের পাকস্থলিতে বা ক্ষুদ্রান্ত্রে থাকা এক ধরনের এনজাইম হল ল্যাকটেজ, যা আমাদের ল্যাকটোজ বা দুগ্ধ জাতীয় উপাদান হজম করতে সাহায্য করে। কোন কারণে এই ল্যাকটেজ এনজাইমের অভাব ঘটলে ল্যাকটোজ ইনটলারেন্সের সমস্যা দেখা যায়।

কীভাবে বুঝবেন আপনি ল্যাকটোজ ইন্টলারেন্ট?
দুধ বা দুগ্ধজাত খাবার খেলেই যদি আপনার গ্যাসের সমস্যা (Lactose intolerance), পাতলা পায়খানা, গা গোলানো, বমি ভাব, অ্যাসিডিটির সমস্যা দেখা দেয়, তাহলে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। এমনটা হলে চিকিৎসকের পরামর্শ মতো ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স টেষ্ট করান।

Lactose Intolerance

চিকিৎসা কী?
ল্যাকটোজ ইনটলারেন্সের (Lactose intolerance) জন্য প্রত্যক্ষ কোনও ওষুধ না থাকলেও বিভিন্ন উপায়ে আপনি এই সমস্যাকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। যতটা সম্ভব দুধ(ডেয়ারি) জাতীয় উপাদান এড়িয়ে চলুন। দুধ বা দুধের তৈরি খাবার খেতে খুব ভাল লাগলেও লোভ সংবরন করুন। দুধের পরিবর্তে স্বাস্থ্যকর বিকল্প খোঁজার চেষ্টা করুন। এতে আপনার পেট, মন, শরীর সবই ভাল থাকবে। শরীরে প্রোটিন, ভিটামিন, মিনারেলসের প্রয়োজনীয়তা মেটাতে নিয়মিত ডিম, মাছ, মাংস ও বিভিন্ন সবুজ শাকসবজি পাতে রাখুন। দই, চিজ খেয়ে দেখতে পারেন, অনেকে ল্যাকটোজ ইন্টলারেন্ট হওয়া সত্ত্বেও দই খেতে পারেন। আপনিও সেই তালিকাভুক্ত কিনা, যাচাই করে দেখুন।