Migraine Pain: সারাক্ষণ মাথায় দপদপানি? মাইগ্রেনের ব্যথা ভোগালে এগুলো করবেন না

গুড হেলথ ডেস্ক

সারাক্ষণ অসহ্য মাথার যন্ত্রণা (Migraine Pain)! সে সঙ্গেই বমি বমি ভাব। শরীর কাহিল। মেজাজ যেন তুঙ্গে। এ দিকে সারাদিনে প্রচুর জমা কাজ। এ সমস্যা কি প্রায়ই হয় আপনার? মাথার একদিকে বাঁ দিক বা ডান দিকে ব্যথা হলে ডাক্তাররা বলেন মাইগ্রেনের ব্যথা।ডিহাইড্রেশন, অতিরিক্ত রোদ লাগা, ক্লান্তি, হ্যাংওভার, হজমের সমস্যা, স্ট্রেস, যে কোনও কারণেই হতে পারে মাইগ্রেন অ্যাটাক (Migraine Pain)। এর থেকে বাঁচতে নানা টোটকা হাতড়ে, ওষুধ খেয়েও কাজ হয় না অনেক সময়। চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় বলে ‘প্রাইমারি হেডেক ডিসঅর্ডার’ । একটানা ৪ ঘণ্টা থেকে ৭২ ঘণ্টা অবধি থাকতে পারে মাথাব্যথা।

Migraine Pain

 

মাইগ্রেনের ব্যথায় কাতর? (Migraine Pain)

মাইগ্রেন এক বিশেষ ধরনের মাথাব্যথা, যেটা অন্যান্য মাথা ব্যথার চেয়ে একটু ভিন্ন ধরনের হয়। ১০-১৫% ক্ষেত্রেই মাথাব্যথার কারণ হয়ে থাকে মাইগ্রেন সংক্রান্ত সমস্যা। এই মাইগ্রেনের ব্যথা মাথার যে কোনও এক পাশ থেকে শুরু হয়ে সারা মাথায় ছড়িয়ে পড়ে। ক্ষেত্রবিশেষে এই ব্যথা মারাত্মক কষ্টকর হয়ে ওঠে।

Migraine and Headache Awareness

মাইগ্রেনের ব্যথা (Migraine Pain) দুরকম হতে পারে–‘মাইগ্রেন উইথ অরা’ এবং ‘মাইগ্রেন উইদাউট অরা’। লক্ষণ থেকে বোঝা যায় ব্যথা কোন পর্যায়ে রয়েছে। যেমন কারও চোখের সামনে নানা আলো ঘুরতে থাকে, অনেক সময় সাদা-কালো আলোর রেখা চলে যেতে দেখা যায়। বেশিরভাগ রোগীরই এমন লক্ষণ দেখা যায়। এটা রোগের প্রাথমিক ধাপ। পরের পর্যায়ে তীব্র যন্ত্রণা শুরু হয় মাথায়। সারা মাথা জুড়ে ব্যথা হতে থাকে।

 

কী কী লক্ষণ দেখে বুঝবেন?

মাইগ্রেনে মাথাব্যথার (Migraine Pain) সঙ্গে আরও কিছু লক্ষণও দেখা যায়। যেমন- বমি বমি ভাব, বমি হওয়া, আলো, শব্দ ইত্যাদির প্রতি অতিরিক্ত সংবেদনশীলতা ইত্যাদি। মনে হবে কেউ মাথার ভেতরে হাতুড়ি দিয়ে মারছে। শিরা দপদপ করবে। চোখের সামনে ক্রমশ অন্ধকার হয়ে আসবে। এই ব্যথা একটানা চলতে থাকবে। অনেকেরই এই সময় মাথা ঘোরা শুরু হয়, গা গোলায়, বমিভাব থাকে দীর্ঘ সময়। মাইগ্রেনের ব্যথা বাড়াবাড়ি হলে মাথা থেকে ঘাড় হয়ে কাঁধের দিকে ছড়িয়ে পড়ে।

Migraine Headache Symptoms, Medications, Treatment & Definition

যাঁদের মাইগ্রেনের সমস্যা রয়েছে, তাঁদের এই ব্যথার জন্য দায়ী কিছু কাজ বা অভ্যাস এড়িয়ে চলা উচিত।

মাইগ্রেনের ব্যথা সারাতে চান, তাহলে এই নিয়মগুলো মানুন

পেট খালি রাখা যাবে না: মাইগ্রেনের ব্যথার (Migraine Pain) অন্যতম কারণ হলো পেট খালি রাখা। খালি পেটে থাকলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দেখা দেয়, যা মাইগ্রেনের সমস্যাকে আরও বাড়িয়ে দিতে পারে। তাই পেট খালি রাখার অভ্যাস এড়িয়ে চলুন।

 মনের ওপর চাপ একদম নয়: যারা অনেক বেশি মানসিক চাপ নিয়ে একটানা কাজ করেন এবং অনিয়মিত জীবনযাপনের ফলে নিজের ঘুম ও খাওয়া-দাওয়ার কোনও নির্দিষ্ট সময় মেনে চলতে পারেন না, তাদেরই বেশি মাইগ্রেনে আক্রান্ত হতে দেখা যায়। তাই মানসিক চাপ যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন। অতিরিক্ত স্ট্রেস, টেনশন, অ্য়াংজাইটি থেকেও মাইগ্রেনের ব্যথা শুরু হয়। অনেকে ঘুমোতে যাওয়ার সময় মাথায় একরাশ চিন্তা নিয়ে যান। হাবিজাবি চিন্তা করে মনের চাপ বাড়ান। তাঁদেরও মাইগ্রেনের ব্যথা কাবু করতে পারে।

Pets Summer Diet: এই গরমে আপনার পোষ্যদের যত্ন নিন, ওদের এখন কী কী খাওয়াবেন?

 Migraine

অতিরিক্ত আওয়াজ ক্ষতিকর: অতিরিক্ত আওয়াজের মধ্যে থাকা, খুব জোরে গান শোনা ইত্যাদির কারণেও মাইগ্রেনের সমস্যা হয়। দেখবেন, যাঁরা বিমানবন্দরে কাজ করেন এবং অনেক আওয়াজের মধ্যে কাজ করেন তাঁদের ক্ষেত্রে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। তাই প্রচণ্ড জোরে শব্দ বা ভলুউম হাই করে গান শোনার মতো অভ্যাস এড়িয়ে চলা উচিত।

বেশি ঘুম ভাল নয়: যাদের মাইগ্রেনের সমস্যা রয়েছে তাদের প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণ (৭-৮ ঘণ্টা) ঘুমানো উচিত। যারা প্রতিদিন মোটামুটি ৫ থেকে ৬ ঘণ্টা করে ঘুমোন, তারা যদি হঠাৎ একদিন একটু বেশি ঘুমিয়ে ফেলেন, সেক্ষেত্রে সেদিন তার মাইগ্রেনের ব্যথা হতে দেখা যায়। ফলে প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমানো দরকার একদিন কম একদিন বেশি এমন অভ্যাস করা উচিত নয়।

migraine headache

আবহাওয়ার বদল: অতিরিক্ত রোদে অথবা বৃষ্টিতে ঘোরাঘুরির কারণে মাইগ্রেনের ব্যথা শুরু হতে পারে। তাই যাদের মাইগ্রেনের সমস্যা রয়েছে তারা বুঝেশুনে বাইরে বের হবেন। চড়া রোদে বেশিক্ষণ বাইরে থাকবেন না। একটানা দীর্ঘ সময় গরমে রোদে কাজ করবেন না। তাহলেই সমস্যা অনেক কম হবে।