Nausea & Vomiting: বেশিক্ষণ বাসে, গাড়িতে চড়লেই বমি পায়, মাথা ঘোরে? চিন্তা নেই উপায় আছে

গুড হেলথ ডেস্ক

বাসে চেপে অনেক দূরে ট্রাভেল করার কথা ভাবলেই গায়ে জ্বর আসে (Nausea & Vomiting)? একা আপনি নন, প্রবল মাথার যন্ত্রণা বা বমি ভাবের জ্বালায় অনেকেই বেশিক্ষণ বাসে বা গাড়িতে ট্রাভেল করতে ভয় পান। গাড়িতে একনাগাড়ে বসে থাকতে থাকতে ঘাড়ে, মাথায় ব্য়থা শুরু হয় অনেকের। মাথা ঘুরতে থাকে, মাথার পেছন দিকটা ভারী হয়ে আসে। বমি পেতে শুরু করে। এসব লক্ষণ অনেকেরই চেনা। অনেকেই ভোগেন।

আরও একটা সমস্যা হয়। চলন্ত গাড়ি থেকে বাইরে তাকিয়ে থাকতে থাকতে মাথা ঘুরতে থাকে (Nausea & Vomiting)। ঝিমুনি আসে, বমি পায়। বাইরের দৃশ্যের নিরন্তর পরিবর্তনের কারণে চোখ থেকে মস্তিষ্কে নানা ধরনের সংকেত যেতে থাকে। সে কারণেও এমন হয়। সারা বছর হজমের গোলমাল না হলেও বাসে বা গাড়িতে অনেকক্ষণ বসে থাকলে গা বমি বমি করে অনেকের। মনে হয় যেন গলা দিয়ে দলা পাকিয়ে উঠে আসছে খাবার। পাহাড়ি রাস্তায় গাড়িতে চড়লে তো এই সমস্যা আরও বাড়ে।

 car sickness

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চোখ, অন্তঃকর্ণ ও ত্বক এই তিন সেনসরি রিসেপ্টরের সংঘাতের কারণেই এমন সব লক্ষণ দেখা দেয়। চলন্ত গাড়ি বা বাসে ট্রাভেল করলে যখন মাথা ঘোরে বা বমি পায়, তখন শরীরের এই অবস্থাকে বলে মোশন সিকনেস (Motion Sickness)।

 

কী করলে মিলবে রেহাই?

বিশেষজ্ঞরা বলেন, মোশন সিকনেস যেমন শারীরিক কারণে হয়, তেমনই মানসিক কারণও দায়ী। মনের ওপর বেশি চাপ পড়লে এমনটা হয়। আগে থেকেই অনেকে ভেবে নেন, এতক্ষণ গাড়িতে চাপলে শরীর খারাপ হবে, সেটাও স্ট্রেস তৈরি করে। তবে কিছু নিয়ম মানলে সহজেই মোশন সিকনেসকে বাগে আনা যায়।

বাস বা গাড়িতে অনেকক্ষণ যেতে হলে সঙ্গে আদা বা লজেন্স রাখুন। বমিভাব এলেই আদা কুচি মুখে ফেলে দিন। এতে অনেকটা সমস্যা কাটানো যায়।

Motion Sickness

পেট্রলের গন্ধে অস্বস্তি হয় অনেকের। সঙ্গে সুগন্ধী রাখুন। এসেনশিয়াল অয়েলেও উপকার মেলে।

গাড়ি দাঁড়ালে নেমে খোলা হাওয়ায় কিছুক্ষণ হেঁটে নিন।

বারে বারে জল খাবেন না, এতে বেশি গা গুলোবে।

সম্ভব হলে এমন জায়গায় বসুন বা দাঁড়ান, যেখানে বাইরের হাওয়া আসছে। তাতেও বমি বমি ভাব কমবে।

একদম খালি পেটে কখনও ট্রাভেল করবেন না। বরং খালি পেটে ‘মোশন সিকনেস’-এর আশঙ্কা বাড়ে। গাড়িতে ওঠার আগে এমন কিছু খান, যা শরীরে জলের অভাব মেটাবে।

গাড়িতে যেতে যেতে মোবাইল ঘাঁটবেন না বা হেডফোনে কথা বলবেন না, এতেও সমস্যা বাড়ে। পারলে চুপ করে চোখ বুঝে থাকুন, হেডফোনে জোরে গান শুনলেও মাথা ঘুরবে।

বাস বা গাড়ির সামনের সিটে বসলে সোজা তাকান। মাথা এদিক ওদিক বেশি করবেন না। অনেকের ভার্টিগোর সমস্য়া থাকে, সেক্ষেত্রে মোশন সিকনেস বাড়তে পারে।