Uric Acid: ইউরিক অ্যাসিড চড়চড় করে বাড়ছে? কী খাবেন আর কী নয়

গুড হেলথ ডেস্ক

গাঁটে গাঁটে অসহ্য ব্যথা? সকালে উঠে পা ফেলতে সমস্যা। ইউরিক অ্যাসিড (Uric Acid) বাড়লে যন্ত্রণার শেষ নেই। ডেকে আনে অন্যান্য শারীরিক সমস্যাও। জেনে নিন ইউরিক অ্যাসিড নিয়ন্ত্রণে রাখতে কী খাবেন, কী খাবেন না।

ইউরিক অ্যাসিড (Uric Acid) হওয়া মানেই অনেক ধরনের খাবার খাওয়ার ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ তৈরি হয়ে যায়। এই ভাবেই খাবার তালিকা থেকে বাদ পড়ে যায় টমেটো, মুসুর ডাল, বিউলির ডাল, পাঁঠার মাংস। সেই সঙ্গে ডাক্তারবাবুরা কড়া নিদান দেন অ্য়ালকোহল-ধূমপান বন্ধ করতে হবে। ওজন কমাতে হবে।

Oatmeal

ইউরিক অ্য়াসিডের রোগীরা অনেক সময়েই না বুঝে এমন খাবার খেয়ে ফেলেন যা শরীরের জন্য একদমই ভাল নয়। আবার এমন খাবার বাদ দেন, যা ইউরিক অ্য়াসিডের রোগীদের জন্য উপকারি। তাই সুস্থ থাকতে জেনে নিন, কী কী খাবেন আর কী কী বাদ দেবেন।

কী কী খাবেন

১) সারা দিন অন্তত ৮ থেকে ১০ গ্লাস জল খেয়ে নিজেকে হাইড্রেটেড রাখুন। ফলের রস খান।

২) লো ফ্য়াট খাবার খান যেমন–লো ফ্যাট ইওগার্ট, স্কিমড মিল্ক খেলে প্রোটিনের চাহিদা মিটবে।

৩) ব্ল্যাক চেরির জুস ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ কম করে। ব্ল্যাক চেরিতে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটারি গুণ থাকে।

Low-Purine Diet

৪) ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে ভিটামিন সি। প্রতি দিনের ডায়েটে ৫০০ মিলিগ্রাম পর্যন্ত ভিটামিন সি রাখা যায়।

৫) প্রচুর ফাইবার আছে এমন খাবার খেতে হবে। সবুজ শাকসবজি এবং ফলমূল বেশি করে খান। শস্য জাতীয় খাবার ডায়েটে বেশি রাখুন।

৬) অ্যাপেল সিডার ভিনিগারও ইউরিক অ্য়াসিড কম করে।

৭) প্রতিদিন দই খেতে পারেন।

৮) মাছ-মাংস একেবারে বন্ধ করার দরকার নেই, সপ্তাহে ২-৩ দিন মাছ বা মাংস খাওয়া যেতেই পারে।

৯)  শরীরে ভিটামিন বি ১২-এর পরিমাণ যাতে বাড়ে, তার জন্য দুধ ও দই খাওয়া জরুরি।

১০) বিস্কুট না খেয়ে তার পরিবর্তে বাদাম খান।

Uric Acid-Giloy: ইউরিক অ্যাসিডে বাদ পড়েছে সব প্রিয় খাবার, রোগ সারাতে আয়ুর্বেদের এই টোটকাই সেরা

 

কী কী খাবেন না

ময়দার রুটি, হোয়াইট ব্রেড, কেক, ক্যান্ডি, কোল্ড ড্রিঙ্ক খাবেন না।

কৃত্রিম রং, চিনি বা কর্ন সিরাপ দেওয়া খাবার একেবারে বন্ধ করা উচিত।

বিনস, ব্রোকোলি, বরবটি, রাজমা, কাবুলি ছোলা, মটর খেলে ইউরিক অ্যাসিড বেড়ে যায়।

পালং শাক, পুঁই শাক, মুসুর ডাল, বিউলি ডাল, মাটন খাওয়া চলবে না। যে কোনও সামুদ্রিক মাছ খেলে ইউরিক অ্যাসিড বেড়ে যাবে।

মাছ, চিকেন বা ডিম খাওয়া যায়। তবে সব মিলিয়ে দিনে ৫০ গ্রামের বেশি নয়।

স্মোকড ও ক্যানড ফুড খাওয়া চলবে না।

মিষ্টি ফল, পেস্ট্রি, বার্গার, চিপস খাবেন না।

অতিরিক্ত অ্যালকোহল ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ বাড়ায়।