আর্থ্রারাইটিস আটকাতে খান ওমেগা ৩! কীসে আছে, জানেন তো?

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ফ্যাট নাকি শরীরের শত্রু। ফ্যাট খেলেই নাকি মোটা হয়ে যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা। এমন বিশ্বাস বদ্ধমূল অনেকের। ডায়েট চার্ট বানাতে গিয়ে বহু মানুষ তাই প্রথমেই তালিকা থেকে ফ্যাট জাতীয় খাবারগুলোকে বাদ দিয়ে দেন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এমনটা একেবারেই ঠিক নয়। শুধু শরীরের গঠনের জন্য নয়, শারীরবৃত্তীয় কাজ সুষ্ঠভাবে করে যাওয়ার জন্য ফ্যাটও প্রয়োজন। ফ্যাটেরও ভাল খারাপ রয়েছে। খারাপ ফ্যাট যেমন শরীরের ক্ষতি করে, তেমন ভাল ফ্যাট অনেক অসুখ বিসুখ থেকে শরীরকে রক্ষা করে।

ভাল ফ্যাট হিসেবে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের বেশ সুনাম রয়েছে। হার্টের রোগে, কোলেস্টেরলের সমস্যায়, প্রদাহ কমানোয় কাজে আসে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড। আর্থ্রারাইটিস বা বাতের ব্যথা কম করতেও কার্যকরী এই ফ্যাট।

খাবারের মধ্যে দিয়ে দু’ধরনের ফ্যাট মূলত আমরা পেয়ে থাকি। পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাট এবং মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাট। এই দুটির মধ্যে পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাট আমাদের শরীরের জন্য বেশি উপযোগী। ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাটেরই অংশ। আমাদের শরীর নিজে নিজে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড তৈরি করতে পারে না। তাই এই ফ্যাটের উপকারী দিকটুকু পাওয়ার জন্য আমাদের বাইরের খাবারের ওপরই নির্ভর করতে হয়।

কেন আর্থ্রারাইটিস আটকাতে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড খাবেন?

পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড মূলত দুই প্রকার। ওমেগা-৩ আর ওমেগা-৬। শিশুর গর্ভে থাকা অবস্থাতেই মস্তিষ্কের বৃদ্ধি ও গঠনে কাজে আসে ওমেগা-৩। তারপর বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নানান শারীরবৃত্তীয় কাজে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড সাহায্য করে। ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড ভীষণভাবে প্রদাহ বা ইনফ্ল্যামেশন ঘটায়। অপরদিকে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডে আছে প্রদাহ বিরোধী বা অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি উপাদান। আমাদের খাদ্যতালিকায় কিছু ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ খাবারেরও প্রয়োজন রয়েছে। তবে ওমেগা-৩ র সঙ্গে সামঞ্জস্য বজায় রেখে খেলে তা আর শরীরের জন্য ক্ষতিকর হয় না।

বাতের ব্যথা বা আর্থ্রারাইটিস মূলত প্রদাহ থেকেই হয়। তাই এই রোগের রোগীরা যদি খাদ্যতালিকায় অল্প হলেও ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড রাখতে পারেন, তাহলে প্রদাহ কম হয়। দেশ-বিদেশের বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, যাঁরা ওমেগা-৩ সমৃদ্ধ খাবার খান, তাঁদের হাঁটু ব্যথা বা জয়েন্ট পেইন কম হয়। এমনকি এসব কারণে খুব একটা ওষুধ খাওয়ার প্রয়োজনও পড়ে না।

কোন কোন খাবার থেকে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড মেলে?

মূলত সামুদ্রিক মাছ, বেশ কিছু শাকসবজি ও ফল থেকে ওমেগা-৩ পাওয়া যায়। যেমন-

  • ফ্ল্যাক্সসিড
  • আখরোট
  • উদ্ভিজ্জ তেল
  • সার্ডিন মাছ
  • সলমন মাছ
  • আটলান্টিক ম্যাকেরেল
  • টুনা মাছ ইত্যাদি

অনেকে স্বাস্থ্যের জন্য ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড সাপ্লিমেন্টও গ্রহন করে থাকেন। তবে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া সাপ্লিমেন্ট না নেওয়াই ভাল।