আপনার কি পেরিমেনোপজ হচ্ছে? কী এই অবস্থা যা মেয়েদের ভোগায়

গুড হেলথ ডেস্ক

মেনোপজ (Menopause) বা ঋতুস্রাব বন্ধের সময় আসতেই নানা রকম সমস্যা দেখা দেয় মহিলাদের শরীরে। হজমের সমস্যা, হরমোনের গোলমাল, মেজাজ খিটখিটে হয়ে যেতে পারে, ঘন ঘন মুড সুয়িং হতে পারে, শরীরে নানাবিধ অস্বস্তি হতে পারে। বেশ কিছু লক্ষণ ফুটে ওঠে এই সময় যা দেখে বোঝা যায় ঋতুবন্ধের সময় এসে গেছে। একে ডাক্তারি ভাষায় বলে পেরিমেনোপজ (Perimenopause)।

সাধারণত ৪৪-৫২ বছরের মধ্যে মেনোপজ হয় বলে ধরা হয়। কিন্তু গবেষকেরা বলছেন এখনকার সময়ে অত্য়ধিক স্ট্রেস, জীবনযাপনে অনিয়ম, নেশার প্রকোপ, মানসিক চাপ-অবসাদ ইত্যাদির কারণে মহিলাদের একটা বড় অংশের ঋতুস্রাব পাকাপাকি ভাবে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে চল্লিশের নীচেই।

 Menopause Symptoms

পঁয়ত্রিশ, ছত্রিশ বা চল্লিশে মেনোপজ (Menopause) হওয়া মহিলারা অল্প বয়স থেকেই হাড় ভঙ্গুর হওয়া, ত্বকের আর্দ্রতা নষ্ট হওয়া, হৃদরোগ, মাথাঘোরা, অনিদ্রা, যোনিপথের শুষ্কতা ও তার ফলে শারীরিক মিলনে সমস্যা, মানসিক অবসাদ বা উদ্বেগের মতো নানা রকম শারীরিক সমস্যায় ভুগছেন।

পেরিমেনোপজে (Perimenopause) কী কী লক্ষণ দেখা দেবে?

১) অনিয়মিত পিরিয়ড। হয় খুব কম ব্লিডিং বা অতিরিক্ত ব্লিডিং শুরু হবে। আবার কয়েক মাস পিরিয়ড বন্ধও থাকতে পারে। টানা ছ’মাস বা এক বছর পিরিয়ড বন্ধ থাকলে বুঝতে হবে মেনোপজের সময় এসে গেছে।

২) হরমোনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। খিদে কমে যাওয়া, কম ঘুম, এমনকি অনিদ্রা বা ইনসমনিয়া দেখা দেয় অনেকের (Perimenopause)।

Perimenopause

৩) মানসিক অবসাদ ও মুড সুয়িং এর একটা বড় লক্ষণ। মেনোপজের সময় এগিয়ে এলে ব্যবহারের কিছু বদল লক্ষ্য করা যায়। যখন তখন রাগ, বিরক্তিভাব দেখা যায়। মেজাজ খিটখিটে হয়ে যায় অনেকের।

৪) ভ্যাজাইনাল ড্রাইনেস দেখা যায় অনেকের। এই সময় যৌনমিলনে সমস্যা হবে। পেশির ব্যথাও ভোগাতে পারে।

৫) চুল পাতলা হতে থাকে, শুষ্ক ও খসখসে হয়ে যাবে ত্বক। যদি দেখেন চুলের যত্ন নেওয়ার পরেও রুক্ষভাব যাচ্ছে না, তাহলে ডাক্তার দেখিয়ে নিতে হবে। হরমোনের ভারসাম্যের তারতম্যের জন্য এমনটা হয় (Perimenopause)। 

ইস্ট্রোজেন হরমোনের পরিমাণ কমে যাওয়ায় রক্তনালীর মধ্যে প্লাক জমার ঝুঁকি বেড়ে যায়। এই সময় কোলেস্টেরল বেড়ে যায় তাহলেই বিপদ। খারাপ কোলেস্টেরল ফাইব্রোলোজেনের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয় যা ব্লাড ক্লটের অন্যতম কারণ। এর থেকে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বাড়ে। যদি দেখেন মাঝরাতে ঘুম ভেঙে গিয়ে দরদর করে ঘামছেন, শরীরে অস্বস্তি হচ্ছে তাহলে সাবধান হতে হবে। এগুলোও পেরিমেনোপজের লক্ষণ হতে পারে।