জোড়া যোনি একই শরীরে, দুই যৌনাঙ্গে দু’বার ঋতুস্রাব, অন্তঃসত্ত্বা করতে পারবেন দু’জন পুরুষ

গুড হেলথ ডেস্ক

একই শরীরে যোনির সংখ্যা দুটি। দুই যোনি গিয়ে মিশেছে দুটি জরায়ুতে (uterus didelphys)। দুই যোনিপথ থাকায় একই সঙ্গে অন্তঃসত্ত্বা করতে পারবেন দু’জন পুরুষ। দুই জরায়ুতে দুটি সন্তানের জন্মও দিতে পারবেন। এমন বিরল শারীরিক অবস্থা খুব কম জনেরই হয়। জোড়া যোনি নিয়ে নিজের অভিজ্ঞতার কথা বলেছেন আমেরিকার লিন বেল।

অ্য়ারিজোনার এক মহিলাও তাঁর এমন শারীরিক অবস্থা (uterus didelphys) নিয়ে প্রকাশ্যে মুখ খুলেছিলেন। ভিডিও করে সেই অবস্থার বর্ণনা দিয়েছিলেন। লিন বেল বলছেন, নিজের এমন শারীরিক অবস্থা নিয়ে আগে কিছু জানতেন না তিনি। টেরও পাননি। শুধু ঋতুস্রাবের সময় ভয়ানক সমস্যা হত তাঁর। পিরিয়ড সাইকেল ঠিক থাকত না, দু’বার করে ঋতুস্রাব হত। ২৮ বছর বয়স অবধি বুঝতে পারেননি তাঁর শরীরে দুটো যোনি রয়েছে। সঙ্গমের সময় খুব কষ্ট পেতেন। পরে পরীক্ষা করালে বোঝা যায় লিনের দুই যোনি, দুটি জরায়ু। দুটি যোনি মাঝখানে বিভাজিকা দিয়ে আলাদা করা।

 Didelphys Uterus

লিন বলছেন, ঋতুস্রাবের সময় মেনস্ট্রুয়াল ক্যাপ ব্যবহার করতেন তিনি। সেই ক্যাপ লাগানোর সময়েও সমস্যা হত। আসলে দুটি যোনিপথ থাকায় ক্যাপ ঠিকমতো ফিট হত না। বিজ্ঞানের পরিভাষায় এহেন শারীরিক গঠনকে বলা হয় ‘ইউটেরাস ডাইডেলফিস’ (uterus didelphys)। চিকিৎসকেরা বলেন, এটি বিরল শারীরিক অবস্থা যা খুব কম মহিলারই হয়। একইসঙ্গে দেহে তৈরি হয় দুটি যোনি। কিন্তু আপাতভাবে যা বাইরে থেকে দেখে বোঝাও যায় না। কারণ আসলে যোনির অভ্যন্তরে একটি বিভাজিকার মাধ্যমে দুটি আলাদা পথ তৈরি হয়। সেই পথ দুটি আলাদা আলাদা জরায়ুতে গিয়ে মেশে।

‘ইউটেরাস ডাইডেলফিস’ থাকলে সন্তান ধারণেও সমস্যা হতে পারে। মিসক্য়ারেজ বা গর্ভপাত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। তাছাড়া পিরিয়ডের সমস্যা, কিডনির অসুখও হতে পারে। সময়ের আগেই সন্তানের জন্ম হতে পারে, প্রিম্যাচিওর বার্থের ঝুঁকি বাড়তে পারে।

uterus

ইউটেরাস ডাইডেলফিসের (uterus didelphys) সাধারণত কোনও উপসর্গ আগে থেকে বোঝা যায় না। তবে কিছু লক্ষণ দেখে সতর্ক হওয়া যেতে পারে–

দুই যোনিপথ থাকলে ঋতুস্রাবের সময় হেভি ব্লিডিং হতে পারে।

মাসে দু’বার করে ঋতুস্রাব হতে পারে।

পিরিয়ড সাইকেল ঠিক থাকবে না।

পিরিয়ডের সময় প্রচণ্ড ক্র্যাম্প হবে, স্যানিটারি ন্যাপকিন বা টেম্পন দিয়েও ব্লিডিং আটকানো যাবে না। অস্বাভাবিক রক্তপাত হবে।

সন্তান ধারণে সমস্যা হতে পারে, মিসক্য়ারেজের ঝুঁকি বাড়বে।