রোজ সকালে খান এই ‘ম্যাজিক ড্রিঙ্ক’, পুজোর আগেই মেদ ঝরিয়ে স্লিম হয়ে যাবেন

গুড হেলথ ডেস্ক

কী করে তাড়াতাড়ি মেদ কমানো যায় এই চিন্তা সকলেরই। বিশেষ করে পুজোর আগে মেদ ঝরানোর জন্য নানা কসরত শুরু করে দেয় জেন এক্স, জেন ওয়াই। নির্মেদ স্লিম ফিগার পেতে কেউ করেন ডায়েট, কেউ আবার জিমে গিয়ে সকাল-সন্ধে ঘাম ঝরান। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আপনার রান্নাঘরেই রয়েছে এমন একটি উপাদান ( Elaichi Water) যা মেদ কমাবে সহজেই। পাশাপাশি কোলেস্টেরল, কোষ্ঠকাঠিন্য, হাঁপানি সহ নানা রোগেরও মোক্ষম দাওয়াই।

ওজন কমানো হোক কিংবা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি – নানা উপকারে আসে ছোট এলাচ ( Elaichi Water)। রান্নায় দিলে স্বাদ-গন্ধ তো বাড়েই, পাশাপাশি ওজন কমাতেও সাহায্য করে এলাচ।

Cardamom

এলাচের অনেক গুণ

★ এলাচের রয়েছে সুন্দর মিষ্টি গন্ধ। মুখশুদ্ধির কাজ করে ছোট এলাচ। মুখের দুর্গন্ধ, মাড়ি দিয়ে রক্তপাত অথবা দাঁত ক্ষয় হওয়ার মতো মারাত্মক সমস্যায় এলাচ কার্যকর ভূমিকা পালন করে।

★ এলাচ ( Elaichi Water) ভেজানো জল আমাদের ওজন কমাতে, কোলেস্টরল কমাতে সাহায্য করে।

★ কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যায় এলাচের জল খুবই কার্যকরী। নিয়মিত এলাচের জল খেলে হজমের সমস্যা কমে। ভারী খাবার খাওয়ার পর একদানা এলাচ মুখে রাখতেই পারেন।

cardamom (elaichi)

★ মধু, লেবুর রস ও গরম জলের সঙ্গে একটা এলাচ মিশিয়ে খেলে করলে শ্বাসকষ্ট, হাঁপানির সমস্যা দূর হয়।

★ এলাচের মধ্যে থাকে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা আমাদের শরীরকে রোগমুক্ত রাখে।

★ অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ হওয়ায় এলাচ ডি-টক্সিফিকেশনের মাধ্যমে টক্সিন শরীরের বাইরে বের করে দেয়।

এলাচ অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদানে ভরপুর। তাই এটা খুব ভাল অ্যান্টি-সেপটিক ও অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরির কাজ করে। ত্বকের স্বাস্থ্য ভাল রাখে। কালো ছোপ দূর করে।

★ এলাচ খিদে বাড়াতে সাহায্য করে। এলাচের তেল ক্ষুধামান্দ দূর করে। খাওয়ার ইচ্ছে বাড়ায়। রুচি আনে।

ওজন কমাতে কী করে বানাবেন এলাচের ‘ম্যাজিক ড্রিঙ্ক’?

এক লিটার জলে ৫-৬ টি এলাচ চিরে দিয়ে ৭-৮ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। তারপর সেই জল ( Elaichi Water) ফুটিয়ে ঠান্ডা করে ছেঁকে নিন। দিনে যখন ইচ্ছে অল্প অল্প করে থেকে পারেন। সবচেয়ে ভাল হয় রাতে ভিজিয়ে রেখে সকালে ঘুম থেকে উঠে খেলে।